31.8 C
Chittagong
শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদচট্টগ্রামস্কুলছাত্রীকে যৌন হেনস্থার দায়ে কিশোরগ্যংয়ের ৪ সদস্য গ্রেফতার

স্কুলছাত্রীকে যৌন হেনস্থার দায়ে কিশোরগ্যংয়ের ৪ সদস্য গ্রেফতার

সুসংবাদ ডেস্ক:

মিরসরাইয়ে এক স্কুলছাত্রীকে যৌন হেনস্থা ও স্কুলছাত্রীর মায়ের পথ রোধ করে হত্যার হুমকির অপরাধে কিশোরগ্যাং এর ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে মিরসরাই থানা পুলিশ।

রবিবার (১৭ সেপ্টম্বর) দুপুরে ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর পিতার অভিযোগের ভিত্তিতে মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ কবির হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, উপজেলার ১১ নং মঘাদিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডস্থ গজারিয়া এলাকার এমরান হোসেন বাদশাহ প্রকাশ শুভ (২০), সাজ্জাদ হোসেন সাগর (২১), মো: শামছুদ্দিন প্রকাশ সালমান (২০) ও রিফাত হোসেন রিমন (২০)। এসময় এজাহার নামীয় ৫নং আসামী মো: সবুজসহ আরো ৪ কিশোরগ্যাং সদস্য পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, উপজেলার ১০নং মিঠানালা ইউনিয়নের জনৈক বেলায়েত হোসেনের স্কুল পড়ুয়া ১৩ বছরের কিশোরীকে স্কুলে যাতায়াতের পথে পাশ্ববর্তী ১১ নং মঘাদিয়া ইউনিয়নের কিশোরগ্যাং এর সদস্যরা যৌন উত্তক্ত করে আসছিল। এক পর্যায়ে গত ১১ মে সিএনজি যোগে অপহরণ করার চেষ্টা করে ও যৌন হেনস্থা করে।

অপহরণ করতে না পেরে ওই স্কুলছাত্রীকে সিএনজি চাপা দিয়ে চলে যায়। ওই ঘটনায় স্কুলছাত্রীর পিতা বেলায়েত হোসেন বাদি হয়ে কিশোরগ্যাং এর দুই সদস্য এমরান হোসেন বাদশাহ প্রকাশ শুভ ও ৫নং এজাহার নাময়ি আসামী মো: সবুজের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মিরসরাই থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে মিরসরাই থানা পুলিশ সবুজকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে ও প্রধান আসামী এমরান হোসেন বাদশাহ প্রকাশ শুভ আদালতে হাজির হলে আদালত তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

পরবর্তীতে জামিনে এসে কিশোরগ্যাং সদস্যরা পুনরায় ১৪ সেপ্টম্বর ভোর সাড়ে ৬টায় ওই স্কুলছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে তার মা-বাবাকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। অন্যথায় তাদের কিশোরি মেয়েকে অপহরণ পরবর্তী গণধর্ষণ করে হত্যার হুমকি দেয়। উক্ত ঘটনায় স্কুলছাত্রীর পিতা বেলায়েত মিরসরাই থানায় জিড়ি নং ৭১২ দায়ের করেন।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৪ মাস পর্যন্ত স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে যায় ওই ছাত্রীর। এতে স্থানীয়ভাবে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। স্থানীয় প্রশাসনেও ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

বিষয়টি মিরসরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা প্রশাসন, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সাংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনকেও অবহিত করা হয়।

মিরসরাই উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা শিক্ষাকর্মকর্তা ও থানা প্রশাসনের সহায়তায় সোমবার (১৭ সেপ্টম্বর) সকালে ওই স্কুলছাত্রীর মা আকলীমা আক্তার তার মেয়েকে বিদ্যালয়ে নিয়ে যান। মেয়েকে বিদ্যালয়ে দিয়ে বাড়ি ফেরার পথেই সকাল ১০টার দিকে মঘাদিয়া ইউনিয়নের সাধুর বাজার সিএনজিষ্ট্যান্ড পৌছলে সেখানে শুভ ও সবুজের নেতৃত্বে কিশোরগ্যাং এর ৭ থেকে ৮ জন দেশিয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার পথ রোধ করে। এসময় কিশোরগ্যাং এর সদস্যরা আকলিমা আক্তারকে তাদের বিরুদ্ধে করা মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দেয়, অন্যথায় হত্যা করা হবে বলে জানায়।

বিষয়টি কিশোরীর বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানতে পেরে থানায় খবর দিলে স্থানীয় সাংবাদিক ও জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় থানা পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে কিশোরগ্যাং এর ৪ জনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, বখাটেদের পূর্বেও একই ঘটনায় গ্রেফতার করে হাজতে পাঠানো হয়েছিল। পুনরায় তারা জামিনে এসে স্কুলছাত্রীর বাড়িতে হুমকি দেয় ও সর্বশেষ তার মায়ের পথ রোধ করে ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে হত্যার ইঙ্গিত দেয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ফোন পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ৪ জনকে আটক করতে সক্ষম হই। তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজা জেরীন জানান, বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় এমপি মহোদয়কে অবহিত করা আছে।