Homeভাইরালপ্রধান শিক্ষকের গাফিলতিতে এসএসসি পরীক্ষা অনিশ্চিত ২৮ শিক্ষার্থীর

প্রধান শিক্ষকের গাফিলতিতে এসএসসি পরীক্ষা অনিশ্চিত ২৮ শিক্ষার্থীর

এসএসসি’র ফরম পূরণের টাকা সঠিক সময়ে জমা নেওয়ার পরও শিক্ষা বোর্ডে জমা করেননি কুড়িগ্রাম উলিপুর উপজেলার গুণাইগাছ ইউনিয়নের নন্দুনেফরা আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফিরোজ শাহ আলম।

বিলম্ব ফি দিয়ে গত ১৫ এপ্রিল ছিল সোনালী ব্যাংকে সেবা পে-স্লিপের মাধ্যমে শিক্ষা বোর্ডে টাকা জমা দেওয়ার শেষ দিন। এ অবস্থায় মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) ২০২১ সালের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ফরম পূরণ ও টাকা জমা দেওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে কয়েকজন এ বিষয়ে লিখিতভাবে উলিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করেন।

অভিযোগে তারা বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে তারা যথাসময়ে ফরম পূরণের টাকা জমা দিলেও তিনি দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সোনালী ব্যাংকে টাকা জমা করেননি। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে দেখা করলে তিনি কীভাবে ফরম পূরণ করবেন সেটি তার বিষয় বলে জানিয়েছেন। ফলে তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্য পড়েছেন। এর আগে প্রধান শিক্ষকের গাফিলতির কারণে বিগত ২০০০ সালে এই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি।

আরো পড়ুনঃ   করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট এখন সৈয়দপুরে!
আরো পড়ুনঃ   মানুষে মানুষে ভালোবাসা প্রকাশ করায় আমার কাজ: জায়েদ খান

এমপিওভুক্ত নন্দুনেফরা আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার মানবিক বিভাগ থেকে ২৫ জন এবং বিজ্ঞান বিভাগ থেকে তিনজন মোট ২৮ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ফরম পূরণ এবং টাকা প্রধান শিক্ষকের কাছে জমা করেছেন।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর-এ-জান্নাত রুমি শিক্ষার্থীদের অভিযোগ পাওয়ার পরপরই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন।

এই নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করলে প্রধান শিক্ষকের টনক নড়ে।

এ অবস্থায় প্রধান শিক্ষক ফিরোজ শাহ আলম বুধবার (২৮ এপ্রিল) কুড়িগ্রাম সোনালী ব্যাংক শাখায় সেবা স্লিপের মাধ্যমে টাকা জমা করছেন বলে দাবি করেছেন।

তিনি আরও দাবি করছেন, বিধি মোতাবেক পরীক্ষার্থীদের সম্ভাব্য তালিকা এবং পরবর্তীতে নির্ধারিত সময়ে টিক চিহ্ন দিয়ে সোনালী ব্যাংকের সেবা স্লিপ পেয়েছিলেন।

আরো পড়ুনঃ   হাসপাতাল থেকে পালানো ভারতফেরত সেই করোনা রোগীরা আটক

তবে করোনা পরিস্থিতিতে ফরম পূরণ স্থগিত সংক্রান্ত গণমাধ্যমে প্রকাশিত একটি সংবাদ দেখে টাকা জমা দেইনি। তবে এ বিষয়ে কোনো দাপ্তরিক চিঠি পাইনি।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ মো. তারিকুল ইসলাম বলেন, প্রধান শিক্ষক বুধবার সোনালী ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার স্লিপ তাকে দেখিয়েছেন। তবে তা গ্রহণ করা হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় আছে। এ জন্য পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে বিষয়টি সুরাহা করার জন্য দিনাজপুর বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে অনুরোধ জানিয়েছেন।

আরো পড়ুনঃ   জয় পেতে মরিয়া রেড ডেভিলরা

তিনি আরও জানান, উপজেলার কোনও বিদ্যালয়ে এ ধরনের ঘটনা না ঘটলেও এই প্রধান শিক্ষক কেন এমনটি করেছেন তা বোধগম্য হচ্ছে না। তবে নিঃসন্দেহে এটি অপরাধ।
                 

DMCA.com Protection Status

ভারতীয় ট্রাকচালকদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে অনীহায় ঝুঁকিতে বেনাপোল

বাংলাদেশে প্রবেশে স্বাস্থ্যবিধি মানছে না ভারতের পণ্যবাহী ট্রাকচালকরা। মাস্ক ছাড়াই থাকছেন, ঘোরাফেরা করছেন। এতে মারাত্মক করোনা ঝুঁকিতে রয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর বেনাপোল। যদিও...

সর্বশেষ সংবাদ