Homeআন্তর্জাতিকএবার যুক্তরাষ্ট্রেই বুস্টার ডোজ নিয়ে বিতর্ক

এবার যুক্তরাষ্ট্রেই বুস্টার ডোজ নিয়ে বিতর্ক

করোনার বুস্টার ডোজ নিয়ে এবার উত্তেজনার পারদ চড়লো যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, এফডিএর বক্তব্যে। যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন কমিটির সদস্যরা বলছেন, সবার টিকা নিশ্চিত না করে বুস্টার ডোজ প্রয়োগে জোর দেয়া অনুচিত। এমনকি বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রতি ৬ মাস বা একবছর পরপর এই বুস্টার ডোজ দেয়ার সুযোগও নেই। এফডিএর বৈঠকে জানানো হয়, বুস্টার ডোজ হিসেবে মডার্নার ভ্যাকসিন সবচেয়ে কার্যকর।

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্বের অনেক দেশেই দেয়া হচ্ছে ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ। অনেক বিশ্ব নেতাও নিয়েছেন তৃতীয় ডোজের টিকা। সারা বিশ্বে যখন ভ্যাকসিনের তীব্র সংকট আর সমন্বয়ের অভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বেড়েই চলেছে প্রাণহানি তখন বুস্টার ডোজ কতটা যৌক্তিক তা নিয়ে চলছে বিতর্ক।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বুস্টার ডোজ ইস্যুতে বৈঠকে বসে এফডিএ। কমিটির সদস্যরা শঙ্কা জানিয়ে বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সবার টিকা নিশ্চিত হওয়ার আগে বুস্টার ডোজ দেয়া অনুচিত। বুস্টার ডোজের ওপর জোর দেয়া ফেডারেল সরকারের সমালোচনাও করা হয় ওই সভায়।

আরো পড়ুনঃ   চীনে বাবুর্চির কাজ করছে রোবট

এফডিএর ওই বিশেষ কমিটির সদস্য ডা. মিখাইল ক্যারিলা বলেন, এখনও যারা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন, তার কারণ এই না যে ওইসব রোগীরা বুস্টার ডোজ পাননি। বরং এটার কারণ হলো, ওই রোগীরা এখনও কোনো ডোজই নিতে পারেননি। আমাদের সবার আগে সেটা নিশ্চিত করতে হবে। আর সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করলেই বুঝবেন, ৬ মাস একবছর পরপর বুস্টার ডোজ দেয়া সম্ভব না।

আরো পড়ুনঃ   চীনে বাবুর্চির কাজ করছে রোবট

কমিটির আরও একজন সদস্য ডা. অর্চনা চ্যাটার্জিও বলেন এমন কথা। তিনি বলেন, যারা টিকা নেননি তাদের চেয়ে টিকা নেয়াদের মাঝে আক্রান্ত ও মৃত্যুহার খুবই কম। তাই করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সুরক্ষার জন্য টিকার কোনো বিকল্প নেই। আমাদের জনসংখ্যার যে পরিধি এবং চাহিদা তাতে সবার জন্য টিকা নিশ্চিত করাই কঠিন। তাই বুস্টার ডোজের চেয়ে এটাই বেশি জরুরি।

আরো পড়ুনঃ   হন্ডুরাসে কারাগারে গ্যাং ওয়ারে কমপক্ষে ৫ জনের মৃত্যু

বৈঠকে বুস্টার ডোজ নিয়ে গবেষণার ফলাফলে বলা হয়, অন্য কোনো ভ্যক্সিনের চেয়ে মডার্নার টিকা সবচেয়ে বেশি কার্যকর। ১২ সপ্তাহ আগে ফাইজার, মডার্না বা জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেওয়া ৪৫৮ জনের ওপর এই গবেষণা চালানো হয়। তাদের তিনটি দলে ভাগ করে বুস্টার ডোজ দেয়া হয়।

এফডিএর উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারম্যান ডা. আর্নল্ড মন্টো জানান, তারা রোগীদের ওপর বিভিন্ন কোম্পানির ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে দেখেছেন। তিনি বলেন, বুস্টার ডোজ হিসেবে এসব রোগীদের শরীরে ৫০ মাইক্রোগাম ওষুধ প্রয়োগ করা হয়। পরীক্ষায় আমরা দেখেছি যারা মডার্নার টিকা নিয়েছেন তাদের শরীরে অ্যান্টিবডির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। বিশেষ করে প্রবীণদের ক্ষেত্রে এটি সবচেয়ে বেশি কার্যকর।

আরো পড়ুনঃ   গাজা সংস্কারে মিসরীয় সাহায্য প্রেরণ

এর আগে বুস্টার ডোজের ফাইজারের ভ্যাকসনিকে অনুমোদন দেয় যুক্তরাষ্ট্র।

সারাদেশে বৈরি আবহাওয়া, বৃষ্টি হতে পারে দিনব্যাপী

নিম্নচাপে পরিণত হয়ে শক্তি হারানো ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে সারাদেশে বিরাজ করছে বৈরি আবহাওয়া। দেশজুড়ে কোথাও গুঁড়িগুঁড়ি আবার কোথাও মাঝারি বর্ষণ হচ্ছে। বিশেষ করে সকাল থেকে...

সর্বশেষ সংবাদ