28.8 C
Chittagong
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদআন্তর্জাতিকপশ্চিমবঙ্গে দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ৮

পশ্চিমবঙ্গে দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ৮

প্রতিবেশী ডেস্ক :

পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিংয়ে একটি এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে মালবাহী ট্রেনের সংঘর্ষ হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ ঘটনায় নিহত বেড়ে ৮ জনে দাঁড়িয়েছে। আরও ২৫ জন আহত হয়েছেন।

আসামের শিলচর থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস কলকাতার শিয়ালদহে যাওয়ার পথে আজ সোমবার (১৭ জুন) সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, ট্রেনটি নিউ জলপাইগুড়ির রাঙ্গাপানি স্টেশন এলাকায় দাঁড়িয়ে ছিল। পেছন থেকে একটি মালবাহী ট্রেন সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়। মালবাহী ট্রেনটির একটি বগি যাত্রীবাহী ট্রেনের ওপরে উঠে যায়।

দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে এখনো বিস্তারিত জানা যায়নি। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, চিকিৎসক ও বিপর্যয় মোকাবিলা দল ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে।

তিনি একটি এক্স পোস্টে লিখেছেন, ‘দার্জিলিং জেলার ফাঁসিদেওয়া এলাকায় এইমাত্র একটি মর্মান্তিক ট্রেন দুর্ঘটনার বিষয়ে জানতে পেরে মর্মাহত হয়েছি।

কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসকে একটি মালবাহী ট্রেন ধাক্কা দিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। ডিএম, এসপি, ডাক্তার, অ্যাম্বুলেন্স ও বিপর্যয় দলগুলো দ্রুত ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। উদ্ধার, পুনরুদ্ধার ও চিকিৎসাসহায়তার জন্য কাজ শুরু হয়েছে।’

কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস একটি দৈনিক ট্রেন, যা পশ্চিমবঙ্গকে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর শিলচর এবং আগরতলার সঙ্গে সংযুক্ত করে। এই ট্রেনের রুট অত্যন্ত সরু। এই লাইনে দুর্ঘটনার ফলে অন্য কয়েকটি ট্রেনের চলাচলে সম্ভাব্য প্রভাব পড়তে পারে।

দার্জিলিং ভ্রমণের জন্য অনেক পর্যটক কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস ব্যবহার করেন। গত কয়েক দিন ধরে কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গে তাপপ্রবাহের কারণে অনেকে স্বস্তির জন্য দার্জেলিংয়ের পাহাড়ি এলাকা ভ্রমণ করছেন। এরই মধ্যে এ দুর্ঘটনা ঘটল।

এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মালবাহী ট্রেনটি সিগন্যাল অতিক্রম করে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসকে ধাক্কা দেয়। ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্সের দল ও অ্যাম্বুলেন্স ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব দিল্লির রেলওয়ে ওয়াররুম থেকে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন বলে জানা গেছে।

তবে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসের পেছনের অংশে কার্গো ভ্যান থাকায় হতাহতের সংখ্যা কমেছে। গার্ডের কোচ ও যাত্রী বগিগুলো সামনের দিকে ছিল।

রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব এক্স পোস্টে বলেছেন, ‘এনএফআর জোনে এটি এক দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। উদ্ধার অভিযান যুদ্ধের ময়দানের মতো সতর্কতা ও দ্রুততার সঙ্গে চলছে।

রেলওয়ে, এনডিআরএফ ও এসডিআরএফের সমন্বয়ে কাজ চলছে। আহতদের হাসপাতালে স্থানান্তর করা হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন।’