Homeসারাদেশটঙ্গীতে ধূর্ত ডাকাত চক্রকে গ্রেফতারে ছদ্মবেশে পুলিশ

টঙ্গীতে ধূর্ত ডাকাত চক্রকে গ্রেফতারে ছদ্মবেশে পুলিশ

গাজীপুর প্রতিনিধি:

গাজীপুরের টঙ্গীর একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের ডাকাতি হওয়া লুণ্ঠিত মালামালসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (২৫ জুন) রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের গ্রেফতারে ক্যাবল অপারেটরের ছদ্মবেশে অভিযানে নেমেছিল পুলিশের একটি দল।

সোমবার (২৭ জুন) গ্রেফতাররকৃতদের আদালতে তোলা হলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় আসামিরা। পরে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করেন বিচারক। গ্রেফতাররকৃতরা হলো- ভোলা জেলার দোলারহাট থানার নুরাবাদ গ্রামের আবুল কালামের ছেলে সোহেল (২৫) ও চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার রানদাজপুর গ্রামের সামাদ খানের ছেলে শুক্কুর আলী সুজন খান (৩২)। এদের মধ্যে সোহেলকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও সুজনকে শাহজাহানপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আরো পড়ুনঃ   বেশ পাল্টে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেন পালিয়ে যাওয়া দুই কিশোরী

টঙ্গী পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শুভ মণ্ডল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় টঙ্গীর মিলগেইট এলাকার ঢাকা স্টিল ওয়ার্কস লিমিটেড কারখানায় ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ডাকাত দলের সদস্যরা কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে কারখানায় থাকা মালামাল ও নগদ ত্রিশ হাজার টাকা লুটে নেয়।

আরো পড়ুনঃ   ৮ মাস পর ফের খুলছে মোদি-বিরোধী সহিংসতায় বন্ধ হওয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশন

ঘটনার পর কারখানা কর্তৃপক্ষ থানায় ডাকাতির মামলা করে। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডাকাতির মূল পরিকল্পনাকারীসহ প্রধান সহযোগীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এসআই শুভ বলেন, আসামিরা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। ডাকাতির পরই এরা ছদ্মবেশে বিভিন্ন এলাকায় রিকশাচালক কিংবা অন্যান্য রাজমিস্ত্রির কাজ করে। ঘনঘন তারা নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করছিল। পরে পুলিশের একটি দল ইন্টারনেট ও ডিশ লাইনের শ্রমিকের ছদ্মবেশে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে।

আরো পড়ুনঃ   নির্যাতন থেকে বাঁচতে ডিভোর্স দিয়েও মেলেনি মুক্তি, স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম বলেন, গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের আদালতে তোলা হলে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এ চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেফতারেও অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ   জরুরি ভিত্তিতে দু-একটি ফেরি ছাড়লেই হুড়মুড় করে উঠছে মানুষ

এসজেড/

সর্বশেষ সংবাদ