26.9 C
Chittagong
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদচট্টগ্রামআসাদগঞ্জে চুরি-পটিয়ায় ধরা

উদ্ধার হয় ৪ লক্ষ ৬৭ হাজার টাকা

আসাদগঞ্জে চুরি-পটিয়ায় ধরা

নানান কৌশল অবলম্বন করে মধ্যরাতে চট্টগ্রাম নগরীর আসাদগঞ্জ এলাকার একটি চাপাতার দোকানে প্রবেশ করেছিলেন মো. কামরুল হাসান প্রকাশ সিফাত (২০) নামে এক যুবক।

বহু কষ্টে ভেঙ্গেছেন দোকানের ক্যাশ বক্স। বিপদ আশার আগেই ক্যাশে থাকা ৪ লক্ষ ৬৭ হাজার নিয়ে চম্পট।

তবে তার সব কষ্টই এখন বৃথা। চুরি করা টাকাগুলো এক সপ্তাহও রাখতে পারলেন না নিজের হেফাজতে। তার আগেই বাড়িতে পুলিশের হানা।

বুধবার (১০ জুলাই) পটিয়া উপজেলার বড়লিয়া এলাকার ৭নং ওয়ার্ডস্থ সৈয়দ পাড়া মফিজ মেম্বারের বাড়ির পাশে সিফাতের ঘরে অভিযান চালায় কোতোয়ালী থানা পুলিশ।

সিফাতের বসতঘরের স্টিলের আলমারি খুলতেই পাওয়া যায় ক্যাশবক্স ভেঙ্গে চুরি করা নগদ ৪ লাখ ৬৬ হাজার ২৫০ টাকা। পরে টাকাগুলো উদ্ধার এবং চুরির অভিযোগে সিফাতকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার সিফাত ওই এলকার মো. শাহ আলমের ছেলে।

থানা সূত্রে জানা যায়, গত ৪ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টা থেকে ৬ জুলাই সকাল ১০ টার মধ্যবর্তী সময়ে কোতোয়ালী থানাধীন আসাদগঞ্জ ৯৯৫ ওসমানিয়া লেইনস্থ ইমাম টি এন্ড ট্রেডিং নামক একটি চাপাতার দোকান চুরি হয়।

চোরের দল দোকানের উপরের টিন ভেঙে কৌশলে ভেতরে প্রবেশ করে। পরে দোকানের ক্যাশ বাক্সের তালা ভেঙে বাক্সে থাকা সব টাকা চুরি করে নিয়ে যায়।

ঘটনার পর দোকানের মালিক মো. ইমাম থানায় এসে একটি মামলা করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, অজ্ঞাত চোরের দল তার ক্যাশ বাক্সে থাকা ৪ লক্ষ ৬৭ হাজার টাকা চুরি করেছে।

পরে মামলাটি তদন্ত করতে গিয়ে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে চোরকে সনাক্ত করতে সক্ষম হয় টিম কোতোয়ালী।

বুধবার সকালে চোরের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর পটিয়া থানাধীন বড়লিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে সিফাতকে গ্রেফতার করা হয় এবং চোরাইকৃত টাকাগুলো উদ্ধার করা হয়।

ওসি বলেন, দোকান চুরিতে জড়িত অন্য কেউ রয়েছে কিনা, এ ব্যাপারে সিফাতকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পরে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।