26.9 C
Chittagong
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদবিনোদনরাজনীতিকে চির বিদায় নুসরাতের!

রাজনীতিকে চির বিদায় নুসরাতের!

বিনোদন ডেস্ক :

ভোটের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই উত্তেজনার পারদ চড়ছে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার প্রত্যাশী নেতাদের মনে। এ বছরই ভারতের লোকসভা নির্বাচন।

টালিউড নায়িকা নুসরাত জাহান এতদিন অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিও সামলেছেন। এবারের লোকসভা নির্বাচনের আগেই সংসদের শেষদিনে তাকে একটি বিশেষ পোস্ট করতে দেখা যায়।

অভিনেত্রী সাংসদের পোস্ট করা এই ভিডিওতে তাকে বাংলার মানুষের হয়ে কথা বলতে শোনা যায়। তিনি এদিন ১০০ দিনের মনরোগা স্কিমের আওতায় কাজ করা কর্মীদের বকেয়া টাকা নিয়েও কথা বলেন। সেই মুহূর্তের ক্লিপ পোস্ট করে এদিন একটি আবেগঘন বার্তা লেখেন নুসরাত।

নুসরাত লেখেন, সংসদে আমার শেষ দিন। ঈশ্বর এবং আমাদের সম্মানীয় দিদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আমি কৃতজ্ঞ বাংলার মানুষের জন্য, তাদের হয়ে কথা বলতে সুযোগ পাওয়ার জন্য।

বিশেষ করে বসিরহাট নির্বাচনী এলাকার মানুষের হয়ে কথা বলতে পারার জন্য। সবাইকে ধন্যবাদ ভালোবাসা ও সমর্থন দেওয়ার জন্য।

অনেকেই তার এই পোস্ট দেখে এদিন উদ্বিগ্ন হয়ে তাকে জিজ্ঞেস করেন তিনি কি তবে আর ভোটে দাঁড়াচ্ছেন না? নাকি টিকিট পাচ্ছেন না? যদিও এই উত্তরগুলো এখনই পাওয়া যায়নি। আগামীতে সেই বিষয়টি স্পষ্ট হবে যে, তিনি রাজনীতি থেকে সরে এলেন কিনা।

প্রায়ই বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন নুসরাত জাহান। তবে নির্বাচনের সময় যতই ঘনিয়ে আসতেছিল নূসরাতকে নিয়ে যেন ততই একের পর এক বিতর্ক উসকে দিতেছিল।

তার মধ্যে সবচেয়ে বড় বিতর্কের মুখে ছিলেন তার ফ্ল্যাট বিক্রি নিয়ে ভয়ানক প্রতারণা অভিযোগ। এতে ফ্ল্যাট বিক্রির নামে প্রতারণায় জড়িয়ে পড়ায় নিজের তারকা ইমেজ আরও বেশি রসাতলে যায় পশ্চিমবঙ্গের অভিনেত্রী ও মমতা ব্যানার্জী নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেসের এই সংসদ সদস্যের।

বিজেপিও এ ঘটনার পর দাবি তুলেছে অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে নুসরাতকে গ্রেপ্তার করা হোক। তার সংসদ সদস্য পদও বাতিল চেয়েছে বিজেপি।

নুসরাতের প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় ‘শত্রু।’ এতে তিনি জিতের বিপরীতে অভিনয় করেন। অভিষেক সেই সিনেমার মতোই এরপর তার ব্যক্তিগত জীবন থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র ও রাজনৈতিক জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই এমন একের পর এক ‘শত্রু’-‘শত্রু’ খেলায় কেটে যাচ্ছে।

ইতোমধ্যে চলচ্চিত্রের ক্যারিয়ারও তার পেরিয়ে গেছে এক যুগেরও বেশি। প্রেম আর রাজনীতি এই দুই নিয়েই রসাতলে গেল তার চলচ্চিত্রের ক্যারিয়ার।

রাজনীতি তো রসাতলে গেছেই সেটা হয়তো আর উদ্ধার করাও সম্ভব হবে না। এটা বুঝেই কি বর্তমানে নুসরাত অভিনয়, প্রযোজনা সংস্থা নিয়ে খুবই ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন? এখন তাতে মন দেওয়ার জন্য রাজনীতি থেকে সরছেন কিনা সেটা সময়ই বলবে।

প্রসঙ্গত, নুসরাত জাহানকে শেষবার সেন্টিমেন্টাল ছবিতে দেখা গিয়েছিল। তার সঙ্গে সেখানে যশ দাশগুপ্ত ছিলেন। প্রথম এই ছবির নাম মেন্টাল থাকলেও পরে সেটি শেষ মুহূর্তে বদলানো হয়। এটি তাদের প্রযোজনা সংস্থার প্রথম প্রযোজিত ছবি ছিল।