26.9 C
Chittagong
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদলিডভারতের নির্বাচনের পর তিস্তা নিয়ে ভালো ফলের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ভারতের নির্বাচনের পর তিস্তা নিয়ে ভালো ফলের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

জাতীয় ডেস্ক :

ভারতের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের পর তিস্তার পানিবণ্টন সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা করছে বাংলাদেশ।

ভারত সফররত বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নয়াদিল্লিতে ফরেন করেসপন্ডেন্টস ক্লাবে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিস্তার পানিবণ্টন নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, কিছুদিনের মধ্যেই ভারতের জাতীয় নির্বাচন। এই নির্বাচনের পরই তিস্তা ইস্যু নিয়ে অগ্রগতি হবে বলে জয়শঙ্করের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।

২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ঢাকা সফরের আগে পানি সম্পদ মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তির বিষয়ে দুইপক্ষ একমত হয়েছিলো।

মনমোহন সিংয়ের সফরেই বহু প্রতীক্ষিত তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি হওয়ার কথা থাকলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধিতায় তা আটকে যায়।

নরেন্দ্র মোদীর বিজেপি সরকার ভারতের ক্ষমতায় আসার পর তিস্তা চুক্তি নিয়ে আশার কথা শোনা গেলেও মমতার মত বদলায়নি।

হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশে ভারতবিরোধী শক্তি রয়েছে। নির্বাচনের সময় এবং মাঝে মধ্যে তারা ভারতবিরোধী সেন্টিমেন্ট তৈরির চেষ্টা করে। তবে এই শক্তি ধীরে ধীরে দুর্বল হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি সীমান্তে বিজিবি সদস্যকে গুলি করি হত্যার বিষয়ে তদন্ত চলছে। সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে মরণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার বন্ধে আহ্বান জানিয়েছি।

তিনদিনের দ্বিপাক্ষিক ভারত সফরে বর্তমানে নয়াদিল্লি রয়েছেন হাছান মাহমুদ। প্রথমদিন তিনি দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

বিএনপি-জামাত বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করতে চেয়েছিল উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, তারা ২০১৪ ও ২০১৮ সালের মত এবারের নির্বাচনকেও বাধাগ্রস্ত করেছে। এরপরও বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া এগিয়ে যাচ্ছে।

বিএনপি ও তার মিত্ররা বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানাতে চায় বলেও মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

জেএন/পিআর