27.7 C
Chittagong
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদখেলাধুলাবৃষ্টি আইনে ২৮ রানে হারলো বাংলাদেশ

বৃষ্টি আইনে ২৮ রানে হারলো বাংলাদেশ

খেলাধুলা ডেস্ক :

আজ সুপার এইটের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে এসে ব্যাটিং ব্যর্থতায় ভালো সংগ্রহ গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। ১৪১ রানের টার্গেট অস্ট্রেলিয়ার জন্য যে মামুলি, তা শুরুতে তাদের ব্যাটিং দৃঢ়তায় বোঝা যাচ্ছিল।

তবে দুইবার অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাটিংয়ের মধ্যে বৃষ্টি বাধায় পড়তে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত বৃষ্টি আইনেই নির্ধারিত হয়েছে খেলার ফলাফল। বাংলাদেশ হেরেছে ২৮ রানে।

ছোট লক্ষ্য তাড়ায় উড়ন্ত শুরু পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই শেখ মেহেদিকে রিভার্স সুইপে বাউন্ডারি হাঁকান ডেভিড ওয়ার্নার। এই অজি বোলারদের থিতু হওয়ারই সুযোগ দেননি।

আরেক ওপেনার ট্রাভিস হেডও একই পথে হেঁটেছেন। দুই ওপেনারের সাবলীল ব্যাটিংয়ে শুরুর পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৯ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া।

পাওয়ার প্লে শেষে বোলিংয়ে আসেন রিশাদ হোসেন। ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বল হওয়ার পরই ম্যাচে হানা দেয় বৃষ্টি। অবশ্য সেটার স্থায়িত্ব ছিল দুই-তিন মিনিট।

এরপর মাঠ প্রস্তুতের কাজও চলছিল। তবে মিনেট দশেক পরই আরেক দফা বৃষ্টি নামে। সবমিলিয়ে ২০ মিনিটের মতো খেলা বন্ধ ছিল।

বৃষ্টির পর খেলা শুরু হলে উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। সপ্তম ওভারের পঞ্চম বলে ট্রাভিস হেডকে বোল্ড করেন এই লেগি। সাজঘরে ফেরার আগে ২১ বলে ৩১ রান করেছেন এই ওপেনার।

নিজের পরের ওভারেও উইকেটের দেখা পেয়েছেন রিশাদ। এই লেগিকে সুইপ করতে গিয়ে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ১ রান করা মিচেল মার্শ।

এর আগে টস হেরে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪০ রান করেছে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

তাছাড়া ৪০ রান এসেছে তাওহিদ হৃদয়ের ব্যাট থেকে। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ২৯ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছেন প্যাট কামিন্স। তাছাড়া ২ উইকেট পেয়েছেন অ্যাডাম জাম্পা।

ম্যাচের ১২তম ওভার চলাকালে অ্যান্টিগায় আরও একবার বৃষ্টির হানা। এবার বেশ জোরেই। তাতে বন্ধ আছে খেলা। ১১.২ ওভার পর ডিএলএস পদ্ধতিতে ২৮ রানে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া, এ সময়ে পার স্কোর ৭২ রান।

ব্যাটিং সহায়ক উইকেট পেইয়েও বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। ব্যাটারদের ব্যর্থতার দিনে বোলিংয়েও শুরুটা হয়েছিল হতাশার। শুরুর পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট শিকার করতে পারেনি বাংলাদেশ।

এরপর বোলিংয়ে এসে পরপর দুই ওভারে দুই উইকেট নিয়েছেন রিশাদ হোসেন। তবে আপাতত বৃষ্টিতে বন্ধ খেলা।

এখনও পর্যন্ত ১১ ওভার ২ বলে ২ উইকেটে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ১০০ রান। জয়ের জন্য ৫২ বল থেকে তাদের আরও প্রয়োজন ৪১ রান।

ছোট লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা উড়ন্ত শুরু পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই শেখ মেহেদিকে রিভার্স সুইপে বাউন্ডারি হাঁকান ডেভিড ওয়ার্নার। এই অজি বোলারদের থিতু হওয়ারই সুযোগ দেননি।

আরেক ওপেনার ট্রাভিস হেডও একই পথে হেটেছেন। দুই ওপেনারের সাবলীল ব্যাটিংয়ে শুরুর পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৯ রান তুলে অস্ট্রেলিয়া।

পাওয়ার প্লে শেষে বোলিংয়ে আসেন রিশাদ হোসেন। ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বল হওয়ার পরই ম্যাচে হানা দেয় বৃষ্টি। অবশ্য সেটার স্থায়িত্ব ছিল দুই-তিন মিনিট।

এরপর মাঠ প্রস্তুতের কাজও চলছিল। তবে মিনেট দশেক পরই আরেক দফা বৃষ্টি নামে। সবমিলিয়ে ২০ মিনিটের মত খেলা বন্ধ ছিল।

বৃষ্টির পর খেলা শুরু হলে উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। সপ্তম ওভারের পঞ্চম বলে ট্রাভিস হেডকে বোল্ড করেন এই লেগি। সাজঘরে ফেরার আগে ২১ বলে ৩১ রান করেছেন এই ওপেনার।

নিজের পরের ওভারেও উইকেটের দেখা পেয়েছেন রিশাদ। এই লেগিকে সুইপ করতে গিয়ে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ১ রান করা মিচেল মার্শ।

এর আগে টস হেরে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪০ রান করেছে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

তাছাড়া ৪০ রান এসেছে তাওহিদ হৃদয়ের ব্যাট থেকে। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ২৯ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছেন প্যাট কামিন্স। তাছাড়া ২ উইকেট পেয়েছেন অ্যাডাম জাম্পা।

ম্যাচের ১২তম ওভার চলাকালে অ্যান্টিগায় আরও একবার বৃষ্টির হানা। এবার বেশ জোরেই। তাতে বন্ধ খেলা। শেষ পর্যন্ত বৃষ্টি আইনে নির্ধারিত হয় খেলার ফলাফল।