26.9 C
Chittagong
মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪
spot_img

― Advertisement ―

spot_img
প্রচ্ছদআন্তর্জাতিকভারত ভ্রমণে গিয়ে না ফেরার দেশে ঢাকার জুনায়েদ

ভারত ভ্রমণে গিয়ে না ফেরার দেশে ঢাকার জুনায়েদ

ভারত ভ্রমণ শেষে দেশে ফেরার পথে জুনায়েদ হোসাইন (৪৫) নামের এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২২ জুন) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ডাউকি সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

পরে ওইদিন দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ভারতীয় ডাউকি ইমিগ্রেশন পুলিশ মৃতের মরদেহ তামাবিল ইমিগ্রেশন পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে।

জুনায়েদ হোসাইন রাজধানী ঢাকার শের-ই- বাংলা নগর, শ্যামলী, বাসা নং-১০, ফ্ল্যাট নং- বি/৭, রোডের মৃত মো.ইকবাল হোসেনের ছেলে। তার ব্যবহৃত পাসপোর্ট নম্বর- A13114514।

ইমিগ্রেশন সূত্র জানায়, বাংলাদেশি নাগরিক জুনায়েদ হোসাইন গত ১৯ জুন তার স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে তামাবিল ইমিগ্রেশন হয়ে ভারত ভ্রমণে গিয়েছিলেন।

২২ জুন বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে ভারতের ডাউকি ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করেন। ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পূর্ণ করে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) চেকপোস্টে আসার পর তিনি জানান তার সন্তানের পাসপোর্টে ভারতের ডাউকি ইমিগ্রেশনে সিল দেওয়া হয়নি।

পাসপোর্টে সিল আনতে পুনরায় ইমিগ্রেশনে যাওয়া পথে জুনায়েদ হোসেন বুকের ব্যথা অনুভব করেন। এ সময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সাথে সাথে ভারতের ডাউকি ইমিগ্রেশন পুলিশ চিকিৎসার জন্য তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার জুনায়েদ হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন।

তামাবিল ইমিগ্রেশন পুলিশের (ইনচার্জ) রুনু মিয়া জানান, ঘটনার পর ডাউকি ইমিগ্রেশন পুলিশ বিষয়টি আমাদের অবগত করেন।

ঘটনায় পর ভারত ডাউকি পুলিশ আইনগত প্রক্রিয়া শেষ করে রাত সাড়ে ১২টার দিকে জুনায়েদ হোসাইনের মরদেহ এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ তামাবিল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এসময় তামাবিল সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পুলিশ মরদেহ নিহতের নিকটতম আত্মীয় স্বজন স্ত্রী ও বোনের হাতে বুঝিয়ে দেয়।